লিবিয়ায় মানবপাচার মামলার আসামী আটক যশোর সিআইডির হাতে আটক লিবিয়ায় কাউকে পাঠাইনি

0
300

স্টাফ রিপোর্টার :যশোর ঝিকরগাছার খাটবাড়িয়া গ্রামের রাকিবুল ইসলামকে লিবিয়ায় পাচার ও হত্যা মামলায় আকবর আলী নামে এক আদম ব্যবসায়ীকে আটক করেছে যশোর সিআইডি পুলিশ। আটক আকবর আলী আদালতে জবানবন্দি দিয়েছে। আকবর মালয়েশিয়া ও সৌদি আরব লোক পাঠিয়েছে বলে জবানবন্দিতে জানিয়েছে। গত মঙ্গলবার জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মামুনুর রহমান আসামির জবানবন্দি গ্রহণ শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন। আকবর আলী মণিরামপুরের গালদা গ্রামের মৃত আলেক গাজীর ছেলে।
বিচারক মামুুুনুর রহমানের কাছে দেয়া জবানবন্দিতে আকবর আলী জানিয়েছে, ১৩/১৪ বছর আগে তার ছেলেকে স্টুডেন্ট ভিসায় মালয়েশিয়া পাঠিয়ে ছিল। এরপর তার জামাইসহ অন্যান্য আত্মীয়স্বজনসহ ১৩/১৪ জনকে মালয়েশিয়া ও সৌদি আরব পাঠিয়েছে ঢাকার বিজয় নগরের একটি ট্রাভেলসের মাধ্যমে। ছেলে ফিরে এসেছে। জামাইসহ অন্যরা ছুটি কাটিযে আবার বিদেশে চলে গেছে। মালয়েশিয়া ও সৌদি আরব ছাড়া অন্যকোন দেশে লোক পাঠায়নি। যাদের পাঠানো হয়েছে তারা সকলে ভালো আছে। কেউ কোন সমস্যায় পড়েনি বলে জবানবন্দিতে জানিয়েছেন আকবর আলী।
মামলার অভিযোগে জানা গেছে, গত ১০ ফেব্রুয়ারি রাকিবুল ইসলাম লিবিয়ার ত্রিপলিতে যাবে বলে বাড়ি থেকে ৪ লাখ টাকা ঢাকার উদ্যেশে রওনা দেয় দাদা নামে পরিচিত মানব পাচারকারী দলের সদস্যকে দেয়ার জন্য। পরদিন রাকিবুলকে মানন পাচারকারীরা ঢাকা থেকে কোলকাতা পাঠিয়ে দেয়। ১৭ ফেব্রুয়ায়ির রাকিবুল তার বড় ভাইয়ের ফোনের ইমোতে জানায়, সে লিবিয়ার বেনগাজিতে অবস্থান করছে। বিমান চলাচল না করায় কয়েকদিন তাদের সেখানে অবস্থান করতে হবে। পরদিন রাকিবুল তার ভাইকে জানায়, মানবপাচারকারী দলের সদস্যরা তাকে পাচার করে মিসদাহ নিয়ে আটকে রেখে নির্যাতন করছে। তারা ১২ হাজার ইউএস ডলার মুক্তিপণ দাবি করছে। এরপর টাকার জোগাড় হয়েছে কিনা ফোনদিয়ে খোঁজ নিতো পাচারকারীরা। মুক্তিপণ না দিলে তাকে হত্যা করা হবে বলে হুমকি দিতো। ২৮ ফেব্রুয়ারি সংবাদ মাধ্যমে পরিবার জানতে পারে মানব পাচারকারীদের গুলিতে রাকিবুলসহ ২৬ বাংলাদেশি নিহত হয়েছে।
এ ব্যাপারে নিহত রাকিবুলের পিতা ইসরাইল হোসেন গত ৬ জুন অপরিচিত ব্যক্তিদের আসামি করে ঝিকরগাছা থানায় মানব পাচার ও হত্যার অভিযোগে মামলা করেন। এ মামলার তদন্তের দায়িত্ব পান সিআইডি পুলিশ। রাকিবুল ইসলামকে লিবিয়ায় পাচার ও হত্যা সাথে জড়িত সন্দেহে আকবর আলীকে আটক করে আদালতে সোপর্দ করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সি আইডির ইন্সপেক্টর হারুনুর রশিদ। তিনি জানান, আসামি আদালত স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here