আগামী বছরের শুরুতে প্রাণের ক্যাম্পাসে ফিরবেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের শিক-শিার্থীরা

0
166

নিজস্ব প্রতিবেদক কুষ্টিয়া ঃ কুষ্টিয়া জেলাবাসীর দীর্ঘ ৫০ বছরের স্বপ্ন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ ২০১১ সালে অনুমোদন পাওয়া তিন বছরের নির্মাণ মেয়াদকে ৯ বছরে পূর্ণ এবং ২শ ৭৫ কোটি টাকার প্রাক্কলন ব্যয় সম্প্রসারিত হয়ে ৬শ ৮২ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মাণ প্রকল্প সম্পন্ন হচ্ছে। এরই মধ্যে আগামী নতুন বছরের শুরুতে প্রাণের ক্যাম্পাসে ফিরবেন কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের শিক-শিার্থীরা। চলতি বছরের ডিসেম্বরের মধ্যে প্রতিষ্ঠানটির একাডেমীক কার্যক্রম শুরুর প্রয়োজনীয় অবকাঠামো একাডেমিক ভবন, ছাত্র ও ছাত্রী হোষ্টেলের অবকাঠামো নির্মানের মূল কাজ শেষ করে ফিনিসিং চলছে। ইতোমধ্যে প্রয়োজনীয় আসবাবপত্র সরবরাহের কার্যাদেশ প্রাপ্ত প্রতিষ্ঠান তাদের মালামাল সরবরাহের প্রস্তুতিও নিয়েছেন। বিষয়টি নিশ্চিত করে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ নির্মাণ প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক ডা: আমিনুল ইসলাম বলেন, অতীতে যা কিছুই হোক, আমরা আর পিছন ফিরে তাকাতে চাই না। আসছে নতুন বছরের শুরুতে আমাদের শিক শিার্থীরা তাদের একাডেমিক কার্যক্রম মূল ক্যাম্পাসে করতে পারবেন এটা হবে আমাদের জন্য অনেক বড় প্রারম্ভিক অর্জন। প্রকল্পটি বাস্তবায়নকারী গণপূর্ত বিভাগ সূত্রে জানা যায়, এ বছর অক্টোবরের মাঝামাঝি ৬শ ৮২ কোটি টাকা প্রকল্প ব্যয় ধরে কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজ নির্মাণ প্রকল্পের ২য় উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাবনা (ডিপিপি)র অনুমোদন লাভ করেছে। ২০২৩ সালের জুন পর্যন্ত নির্মাণকাল মেয়াদের মধ্যে প্রকল্পটির সকল নির্মাণ কার্যক্রম সম্পন্ন করে সংশ্লিষ্ট স্বাস্থ্য বিভাগের কাছে হস্তান্তর করা হবে বলে কঠোর নির্দেশনাও দেয়া হয়েছে। প্রকল্পটির গণপূর্ত বিভাগ কর্তৃক বাস্তবায়নযোগ্য কাজগুলি সম্পন্ন করতে ব্যয় ধরা হয়েছে ৪শ ৮৮ কোটি টাকা এবং বাকী ১শ ৯৪ কোটি টাকা ব্যয় ধরা হয়েছে একাডেমিক কার্যক্রমসহ আনুষঙ্গিক চিকিৎসা খাতের যন্ত্রপাতি ও সরঞ্জামাদি বাবদ। কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের ইন্টার্ন শিার্থী সায়মা যুথী বলেন,শত সহস্র কষ্ট ও বঞ্চনার বেদনা নিয়ে প্রায় শেষ করে ফেললাম জীবনের প্রাণ চাঞ্চল্যের মেডিকেল শিা জীবন। শিা জীবনে প্রাণের ক্যাম্পাসের কোন স্বাদ পায়নি। তবুও বলবো আমাদের অনেক সৌভাগ্য। আগামী বছরের শুরুতে আমরা আমাদের মেডিকেল ক্যাম্পাস, হল জীবন, মুক্ত বাতাসে ঘুরাঘুরি খুব ভাবতেই খুব মাজ পাচ্ছি। কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের অধ্য ডা: দেলদার হোসেন বলেন। প্রকৃত অর্থে যার যেখানে যে অবস্থায় থাকার কথা সেখানে কোন বিচ্যুতি ঘটলে যা হয়, কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজের চিকিৎসা শিা কার্যক্রমের েেত্রও তেমনটিই হয়েছে। তবে সবশেষ কথা হলো- আমরা মূল ক্যাম্পাসে শিা মনোরম পরিবেশে শিা কার্যক্রম পরিচালনা করতে যাচ্ছি এজন্য সংশ্লিষ্ট সকলকে ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানায়। একই সাথে জেলাবাসীর সার্বিক সহযোগিতা কামনা করছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here