যবিপ্রবির সঙ্গে রাবিপ্রবির সমঝোতা স্মারক সই

0
212

স্টাফ রিপোর্টার ॥ শিা ও গবেষণায় যৌথ সহযোগিতা, গবেষণামূলক সফর, দুই প্রতিষ্ঠানের শিক, কর্মকর্তা ও শিার্থীদের প্রশিণসহ বিভিন্ন ল্য বাস্তবায়নে যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) সঙ্গে সমঝোতা স্মারক (এমওইউ) সই করেছে রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রাবিপ্রবি)। শনিবার দুপুরে দুই বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের উপস্থিতিতে যবিপ্রবির রেজিস্ট্রার প্রকৌশলী মো. আহসান হাবীব ও এবং রাবিপ্রবির রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) অঞ্জন কুমার চাকমা প্রশাসনিক পর্যায়ে নিজ নিজ প্রতিষ্ঠানের পে এই সমঝোতা স্মারকে সই করেন। যবিপ্রবির প্রশাসনিক ভবনের সম্মেলন কে এ সমঝোতা স্মারক অনুষ্ঠিত হয়। সমঝোতা স্মারক সইয়ের পর রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. প্রদানেন্দু বিকাশ চাকমা বলেন, ‘গণমাধ্যমের বদৌলতে জেনেছি, শিা ও গবেষণার জন্য গবেষণাগারের সুযোগ-সুবিধা যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে অনেক উন্নত। তবে দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে সাংস্কৃতিক বিনিময়, গবেষণা ও শিার জন্য ভ্রমণসহ নানা বিষয়ে আমরা আপনাদের পাশে থাকতে পারবো। আশা করি, এ সমঝোতা স্মারকের মাধ্যমে দুই প্রতিষ্ঠানের সম্পর্ক আরও উন্নত হবে।’ যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. মোঃ আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘এ সমঝোতা স্মারক সইয়ের মূল ল্য হচ্ছে পারস্পারিক সাহায্য-সহযোগিতার মাধ্যমে আমাদের যা কিছু তাই নিয়ে দুই প্রতিষ্ঠানের সামনের দিকে এগিয়ে যাওয়া, এ দেশকে গড়তে হলে আমাদের এটা করতে হবে। রাঙ্গামাটির যে উন্নত সাংস্কৃতিক ঐহিত্য রয়েছে, সেটা সত্যিই প্রশংসার দাবি রাখে। দুই প্রতিষ্ঠানের পারস্পারিক স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিষয়ে আমরা উভয়কেই সার্বিক সহযোগিতার মাধ্যমে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবো।’ এই সমঝোতা স্মারকের প্রধান ল্যগুলো হচ্ছে যৌথ সহযোগিতার মাধ্যমে জয়েন্ট ফিল্ড ট্রিপ, তথ্য ও প্রযুক্তি আদান-প্রদান, শিা ও গবেষণা েেত্র শিক, কর্মকর্তা ও শিার্থীদের প্রশিণ, বিনিময় কর্মসূচি (একচেঞ্জ প্রোগ্রাম), যৌথ গবেষণার জন্য গবেষণারের সুযোগ-সুবিধা বিনিময় ও অন্যান্য সাধারণ সুবিধাদি প্রদান করা। এ সমাঝোতা স্মারকের মেয়াদ হবে আগামী পাঁচ বছর। সমঝোতা স্মারক সইয়ে দুই প্রতিষ্ঠানের মধ্যে মধ্যস্ততা করেন যবিপ্রবির ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা দপ্তরের পরিচালক ড. মো. আলম হোসেন। সমঝোতা স্মারকে সইয়ের সময় উপস্থিত ছিলেন যবিপ্রবির কোষাধ্য অধ্যাপক মো. আব্দুল মজিদ, ডিন অধ্যাপক ড. সৈয়দ মো. গালিব, অধ্যাপক ড. মো. জিয়াউল আমিন, ড. শিরিন নিগার, ড. মো. আব্দুল্লাহ আল-মামুন, ড. সুমন চন্দ্র মোহন্ত, ড. মো. মেহেদী হাসান, রাঙ্গামাটি বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর জুয়েল সিকদার, ফরেস্ট্রি অ্যান্ড এনভায়রনমেন্টাল সায়েন্স বিভাগের চেয়ারম্যান ড. সুপ্রিয় চাকমা, সহকারী রেজিস্ট্রার মোহাম্মদ কামরুল হাসান, সেতু চাকমা প্রমুখ।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here