নারিকেলবাড়িয়ায় নৌকা নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর, আহত ৩

0
192

মালিকুজ্জামান কাকা, যশোর : উত্তপ্ত বাঘারপাড়া উপজেলায় নৌকার নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করেছে দূর্বত্তরা। এতে আহত হয়েছেন তিনজন। যশোরের বাঘারপাড়ার নারিকেলবাড়িয়া ইউনিয়নে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বাবলু সাহার নির্বাচনী অফিস ভাংচুর ও নৌকার তিন সমর্থককে পিটিয়ে আহত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে রোববার রাত পৌনে ১২ টার দিকে ইউনিয়নের মালঞ্চী গ্রামে।
নৌকার কর্মী জাকির হোসেন জানান, রোববার রাত পৌনে ১২ টার দিকে নৌকার সমর্থক মালঞ্চী গ্রামের মোক্তার হোসেন মোটরসাইকেলযোগে মালঞ্চী গ্রামের হাজিরকুড় পাড়ের নৌকার অফিস থেকে ৫০ গজ দূরের মালঞ্চী স্কুল মাঠ সংলগ্ন আরেকটি নৌকার অফিসে যাচ্ছিলেন। এ সময় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আবুল সরদারের সমর্থকরা তাকে পিটিয়ে আহত করে। খবর পেয়ে নৌকার কয়েকজন সমর্থক এগিয়ে এলে তাদের ওপরও হামলা চালায় আনারস প্রতীকের সমর্থকরা। হামলাকারীরা একই সাথে নৌকার নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর করে। এ সময় আরো আহত হয় নৌকার কর্মী মালঞ্চী গ্রামের সত্তার মোল্যার ছেলে শিমুল ও আব্দুল লতিফের ছেলে তরিকুল ইসলাম। আহতদের বাঘারপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্যকমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। এর মধ্যে তরিকুলের বুকে ও মোক্তার মাথায় গুরুতর আঘাত পাওয়ায় তাদেরকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। নৌকা প্রতীকের প্রার্থী বাবলু কুমার সাহা অভিযোগ করেন, আনারস প্রতীকের প্রার্থী আবু তাহের আবুল সরদারের নির্দেশে ৮ নং ওয়ার্ডের মেম্বর প্রার্থী আলতাফ হোসেনের নেতৃত্বে ২০/১৫ জন এ হামলার ঘটনা ঘটিয়েছে। নৌকার নির্বাচনী কার্যালয় ভাংচুর ও তার কর্মীদের ওপর হামলা চালিয়েছে। হামলাকারীরা বিএনপি-জামাতের নেতা-কর্মী বলেও উল্লেখ করেন বাবলু সাহা। আনারস প্রতীকের প্রার্থী আবু তাহের আবুল সরদার ও মেম্বর প্রার্থী আলতাফ হোসেনের মোবাইল ফোন বন্ধ থাকায় তাদের বক্তব্য পাওয়া যায়নি।
হাসপাতালের জরুরি বিভাগের চিকিৎসক সুমাইয়া রহমান জানান, আহত তিনজনের মধ্যে তরিকুল ও মোক্তারের অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাদেরকে যশোর জেনারেল হাসপাতালে রেফার করা হয়েছে। বাঘারপাড়া থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) রাত সোয়া ১ টায় জানান, খবর পেয়ে পুলিশের একটি টিম ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে। তারা কাজ করছে। পরিস্থিতি বর্তমানে স্বাভাবিক রয়েছে বলেও উল্লেখ করেন এই পুলিশ কর্মকর্তা। এদিকে ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে বাঘারপাড়ায় বাড়ছে সহিংসতা। গত ১ নভেম্বর সকালে মনোনয়নপত্র জমা দিতে যাওয়ার সময় জহুরপুর ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি বদর উদ্দিন মোল্যার ওপর হামলা চালায় নৌকার প্রার্থী আসাদুজ্জামান মিন্টুর সমর্থকেরা। এ ঘটনায় বদর উদ্দিন ও তার ছেলে লোটাসহ চার সমর্থক আহত হন। তিগ্রস্ত হয় লোটাসের চোখ। একই ইউনিয়নে গত ১৮ নভেম্বর সন্ধ্যায় মিছিল করে বাড়ি ফেরার পথে ফের বদর উদ্দিনের সমর্থকদের ওপর হামলা চালায় নৌকা প্রতীকের সমর্থকেরা। এ ঘটনায় আহত হয় আনারস প্রতীকের পাঁচ সমর্থক। এ ঘটনা নিয়ে প্রেসকাব যশোরে সংবাদ সম্মেলন করেন বদর উদ্দিন। এছাড়া গত ১৯ নভেম্বর সন্ধ্যায় নারিকেলবাড়িয়া ইউনিয়নে হামলার শিকার হন আনারস প্রতীকের সমর্থক ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সহসভাপতি আসাদুজ্জামান চিশতী। উল্লেখ্য, তৃতীয় ধাপে এ উপজেলার ৯ টি ইউনিয়নে আগামী ২৮ নভেম্বর নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here