১৪ বছর পর ভোট দিতে আইছি, ঈদের আনন্দ লাগতেছে

0
229

মেহেদী হাসান, মনিরামপুর ॥ রোববার, ঘড়ির কাঁটা তখন সকাল ৯টা। টেংরামারী সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ভোটকেন্দ্রে ভোট দেওয়ার অপোয় লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন মাহমুদকাটি গ্রামের তাজুল ইসলাম (৭০), কদমবাড়িয়া গ্রামের আনসার আলী (৬০), নূর ইসলাম (৬০), আবু সায়ীদ (৪০) ও ফারুক হোসেন (৩৭)। এক ঘন্টা ধরে ভোটের লাইনে দাঁড়িয়ে আছেন তাঁরা। কান্তি নেই, চোখে মুখে আনন্দের ছাপ। ১৪ বছর পর ভোট কেন্দ্রে আসতে পেরে এত খুশি তারা। এরআগে মারধর ও দাঙ্গা হাঙ্গামার ভয়ে কোন ভোটে বাড়ি থেকে বের হতে পারেননি এ পাচ ভোটার। কদমবাড়িয়া গ্রামের ফারুক হোসেন বলেন, ১৩ বছর ভোটের মাঠে আসতি পারিনি। আজ (রোববার) সকাল থেকে ভোট দেব বলে লাইনে দাঁড়াই আছি। ঈদের আনন্দ লাগছে। একই গ্রামের আবু সাইদ বলেন, ১৪ বছর ধরে ভোট দিতি পারিনি। ভোটের দিন ঘর হতে বের হতি পারিনি। এবার ভোট সুষ্ঠু মনে হচ্ছে। ওই গ্রামের নূর ইসলাম বলেন, ভোটের মাঠে আসতি দিইনি। পথেরতে ফেরত দেছে। আজ (রোববার) ভোটের মাঠে আইছি। ১ ঘন্টা লাইনে দাঁড়াই আছি। ভোটদিতে আসতি পাইরে ভাল লাগতিছে। মাহমুদকাটি গ্রামের তাজুল ইসলাম বলেন, ১৪ বছর পর ভোটের মাঠে আইছি। এরআগে ভয়তে ভোট দিতি আসিনি। মারবে, ধরবে, পেটপে, বোম ফুটোচ্ছিল এই ভয়ে এত বছর ভোটের মাঠে আসতি পারিনি। এ বৃদ্ধ ভোটার বলেন, আজ (রোববার) ভোটের মাঠে আসতি পাইরে খুব শান্তি পাচ্ছি। টেংরামারী সম্মিলনী মাধ্যমিক বিদ্যালয় ভোট কেন্দ্রের প্রিজাইডিং কর্মকর্তা আনন্দ মোহন মণ্ডল বলেন, সুষ্ঠু পরিবেশে ভোট নিতে পারছি। ভোটারদের মুখে হাসি ফুটেছে। বহুবছর পর ভোটারদের মধ্যে আনন্দ দেখতে পেয়েছি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here