চৌগাছায় ভারত সীমন্ত থেকে বাংলাদেশী প্রকৌশলীর লাশ উদ্ধার

0
201
রায়হান হোসেন,  চৌগাছা পৌর প্রতিনিধিঃ যশোরের চৌগাছায় ভারত সীমন্ত থেকে রফিকুল ইসলাম জনি (৪৮) নামে এক বাংলাদেশী প্রকৌশলীর লাশ উদ্ধার করেছেন পুলিশ। তিনি ঢাকা-৭০৬, বড় মগবাজার এলাকার ডাক্তার আব্দুল আজিজের ছেলে। বর্তমানে তিনি যশোরের ১৭, উমেশচন্দ্র ঘোষলেন, লোন অফিস পাড়ার বাসীন্দা ছিলেন। চৌগাছা থানা সুত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার (২ ডিসেম্বর) ভোরে উপজেলার মাশিলা সীমান্তের
গদাধরপুর ও ভারতের বয়রা বাওড়ে ভাসমান অবস্থায় তার মরদেহ উদ্ধার করেন পুলিশ। পরে ভারতে তার খালাতো ভাই মোহন আহম্মেদের সাথে যোগাযোগ করে ও ফিঙ্গারপ্রিন্টের মাধ্যমে পরিচয় শনাক্ত করেন পুলিশ। পরে মরদেহটি চৌগাছা থানা হেফাজতে আনা হয়।
নিহতের ভাগ্নে যশোর সরকারি পলিটেকনিক কলেজের অধ্যক্ষ (পিআরএল) মাশরেকুল ইসলাম জানান, রফিকুল ইসলাম একজন ডিপ্লোমা প্রকৌশলী। তার স্ত্রী কৃষি ব্যাংকের ঢাকা হেড অফিসে একজন কর্মকর্তা। তিনি বর্তমানে যশোর শহরের লোন অফিস পাড়ায় আমার বাড়িতে থাকতেন। মুলত তিনি আমার নির্মানাধীন বাড়ীর কাজ তদারকি করতেন। ৩/৪ দিন আগে তিনি আমাকে বলে মামা আমি তো মায়ের
কবর জিয়ারত করতে ভারতে যেতে চাই। কিন্তু আমার পাসপোর্টের মেয়াদ শেষ হয়ে গেছে। আমি বলি ঢাকায় সচিবালয়ে যাচ্ছি। এসে তোমার পাসপোর্ট ও ভিসার ব্যবস্থা করে দেব। আমাকে না জানিয়ে তিনি বুধবার যশোর থেকে ঝিকরগাছায় তার ভাইয়ের মেয়ের বাড়িতে যান। সেখান থেকে ভারতে বসবাসকারি খালাতো ভাই মোহন আহমেদের সাথে যোগাযোগ করেন। আমার ধারণা তিনি চৌগাছার সীমান্ত পার হয়ে অবৈধ পথে ভারতে যাওয়ার চেষ্টা করছিলেন। ভারতে যাওয়ার সময় পানিতে ডুবে মারা যেতে পারেন। থানায় গিয়ে শনাক্ত করে ময়না তদন্ত ছাড়াই মরাদেহটি নেওয়ার জন্য তদবির করে ব্যার্থ হয়েছি। চৌগাছা থানা পুলিশ লাশটি ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছেন।
এ ব্যাপারে প্রত্যক্ষদর্শী গদাধরপুর বাওড়ের নাইটগার্ড নওফেল হোসেন ও শাহিনুর রহমান জানান, বৃহস্পতিবার রাতে প্রতিদিনের মতো নৌকায়চড়ে বাওড় পাহারা দেয়ার সময় টর্চ লাইটের আলোয় দেখি ভারত সীমান্তের বয়রা বাওড়ের গদাধরপুর-মসজিদ ঘাটের পাশে একটি মানুষের দেহ। এ সময় আমরা প্রথমে মাশিলা বিজিবি ক্যাম্পে খবর দিই। পরে বিজিবি সদস্যরা থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করেন। তারা আরো জানান, ভারতের বয়রায় আত্মীয় থাকায় সেখানকার অনেক (বাংলাদেশ- ভারত) পারাপার করার দালালের সাথে মাঝে মধ্যে মুঠোফোনে কথা হয়। বৃহ¯পতিবার তাদের মধ্যে অভি নামে এক দালাল মুঠোফোনে জানায় আজ বাংলাদেশ থেকে একজন লোক আসবে। তাকে ভারতের ভিতরে নিতে হবে।
পরে বিজিবি সেখানে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করেন।এ ব্যাপারে চৌগাছা থানার ওসি সাইফুল ইসলাম সবুজ বলেন, মাশিলা ক্যাম্পের বিজিবি সদস্যদের
মাধ্যমে সংবাদ পেয়ে পুলিশ রাতে ইঘটনাস্থলে গিয়ে মরদেহটি উদ্ধার করেন। পরে সুরাতহাল করা হয়।
অনুসন্ধানে জানা যায়, তিনি পাসপোর্ট ছাড়াই অবৈধভাবে দালালের মাধ্যমে বাওড়ের পানি সাতরিয়ে পার হয়ে ভারতে যাওয়ার পথে পানিতে ডুবে মারা যেতে পারেন। ভারতে তার খালাতো ভাই মহন আহম্মেদের সাথে কথা বলে পরিচয় শনাক্ত করা হয়। শুক্রবার পরিবারের সদস্যরা থানায় এসে মরদেহটি শনাক্ত করেন। শুক্রবার বিকেলে মরেদহটি ময়না তদন্তের জন্য যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here