যশােরে হাত-পা বঁেধে স্ত্রীর মুখে বষি ঢলেে হত্যার অভযিোগ স্টডেয়িামপাড়ার সন্ত্রাসী সাবুর ভয়ে এবার তটন্ত তার শ্বশুরবাড়রি লোকজন’

0
181

যশাের প্রতনিধিি : ‘স্ত্রীকে বষি পানে হত্যা করার পর এখন শ্বশুরবাড়রি লোকজনকে প্রাণনাশরে হুমকি দচ্ছিে যশোর শহররে স্টডেয়িামপাড়ার কুখ্যাত সন্ত্রাসী শখে সাহাবুর রহমান সাবু (৪০)। হত্যাসহ ১০ মামলার আসামি এই সন্ত্রাসীর ভয়ে এখন তটস্থ শ্বশুর মোবারক গোলদার। কাজরে জন্য বাড়রি বাইরওে যতেে পারছনে না।’
এমন সব অভযিোগএনে গত শনবিার যশোর কোতয়ালি থানায় জডিি করছেে মোবারক গোলদার। জডিি নম্বর-১৮০, তারখি-০৪-১২-২০২১। জডিতিে সাবুসহ তনিজনরে কথা উল্লখে করা হয়ছে।ে তনিি শহরতলীর খোলাডাঙ্গা মধ্যপাড়ার বাসন্দিা।
মোবারক গোলদাররে অভযিোগ,ে তার ময়েে শারমনি আক্তার প্রীতরি (৩০) সাথে ১২ বছর আগে বয়িে হয় খড়কী স্টডেয়িাম পাড়ার মৃত শামছুর রহমানরে ছলেে শাহাবুর রহমান সাবুর। বয়িরে পর তনিি জানতে পারনে সাবু একজন র্শীষ সন্ত্রাসী। দাম্পত্য জীবনে তাদরে দুইটি সন্তান আছ।ে বয়িরে পর থকেে সাবু যৌতুকরে জন্য নানাভাবে প্রীতরি ওপর নর্যিাতন চালাতো। ময়েরে সুখরে কথা চন্তিা করে তনিি ৭/৮ লাখ টাকা দনে সাবুক।ে কছিুদনি চুপ থাকার পর ফরে ২ লাখ টাকার জন্য চাপপ্রয়োগ করতো। বষিয়টি নয়িে তারা পারবিারকিভাবে মমিাংশায় বসনে। ওই মমিাংশা সভায় শাশুড়কিওে মারপটি করে সাবু। তবুও ময়েরে কথা চন্তিা করে টাকা দয়োর আশ্বাস দনে। গত ২৯ নভম্বের তারা ময়েে সাবুর বাড়তিে সংসাররে কাজ করছলি। বকিলেে টাকার জন্য তাকে মারপটি করে সাবু। তার শরীররে সমন্ত জায়গায় আঘাতরে চহ্নি করে দয়ো হয়। কালশীরা দাগ পড়ে যায় শরীররে বভিন্নি স্থান।ে মারপটিরে এক র্পযায়ে সাবু ও তার বোন শুকরয়িা বগেম ওরফে দুধচনিরি (৬০) সহযোগতিায় প্রীতরি হাত-পা দড়ি দয়িে বঁেধে মুখে বষি ঢলেে দয়ে। সে সময় মৃত্যুর যন্ত্রনায় চৎিকার দলিে আশপোশরে লোকজন এগয়িে এসে প্রীতি দ্রুত যশোর জনোরলে হাসপাতালে র্ভতি কর।ে পরদনি ৩০ নভম্বের প্রীতি মারা যায়। বলা হয় প্রীতি বষিপানে আত্মহত্যা করছে।ে এই ঘটনায় তনিি সাবু ও তার বোন দুধচনিি এবং এই এলাকার সুজনরে (২৮) বরিুদ্ধে কোতয়ালি থানায় একটি লখিতি অভযিোগ দনে।
এই মৃত্যুর ঘটনায় স্টডেয়িামপাড়ার র্সবস্তররে মানুষ ক্ষপ্তি হন। তারা এলাকায় এই ঘটনার প্রতবিাদে ঝাটা মছিলি কর।ে দ্রুত সাবুকে আটকরে জন্য দাবি জানায়। কন্তিু পুলশি জানয়িে দয়ে লাশরে ময়নাতদন্তরে জন্য অপক্ষো করতে হব।ে
মোবারক গোলদার জানয়িছেনে, থানায় অভযিোগ দয়োর পর থকেে সাবু র্সাবক্ষণকি তার পরবিাররে ওপর নজর রাখ।ে প্রতদিনি ১০/১২টি মোটরসাইকলেে করে ২০/২৫জন তার বাড়রি আশপোশে মহড়া দয়ে। প্রতনিয়িত নানা হুমকি ধামকি দয়ো হচ্ছ।ে এলাকার লোকজনকে বলে বড়োচ্ছে ‘খুন একটি করলওে যা একাধকি করলওে তাই। কউে কোন কছিু করতে পারবে না তার’। র্বতমানে তনিি জীবকিার প্রয়োজনে বাড়রি বাইরে যতেে পারছনে না। পরবিাররে লোকজন ভীতসন্ত্রস্থ হয়ে দনি কাটাচ্ছ।ে তনিি এবষিয়ে প্রশাসনরে সহযোগতিা কামনা করছেনে জডিতি।ে
মোবারক গোলদাররে দায়রেকরা অভযিোগটি তদন্ত করছনে কোতায়ালি থানার এসআই কামাল হোসনে। তনিি জানয়িছেনে, দুই পক্ষরে পরস্পর বরিোধী অভযিোগরে প্রক্ষেতিে প্রীতরি লাশরে ময়নাতদন্ত রপর্িোট হাতে না পাওয়া র্পযন্ত ব্যবস্থা নতিে পারছি না। তবে শ্বশুরবাড়রি লোকজনকে হুমকরি ঘটনায় জডিি হয়ছেে বলে শুনছে।ি এই বষিয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নয়ো হব।ে

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here