ঝিনাইদহে আর কত চিকিৎসার ভুলে অপমৃত্যুর পর ঘুম ভাঙ্গবে সিভিল সার্জনের, কেনোই বা নীরব দর্শকের ভূমিকায় সিভিল সার্জন?

0
44
কামরুজ্জামান লিটন ঝিনাইদহ : চিকিৎসা সেবা নিতে এসে,ঝিনাইদহের ডাকাবাংলা বাজারে ডাকবাংলা নার্সিং হোম এন্ড নুরজাহান ডায়াগনস্টিক সেন্টারে চিকিৎসার অবহেলায় প্রসূতি মায়ের মৃত্যু। শনিবারে ঝিনাইদহের গ্রীন লাইফ ক্লিনিকে ডাক্তারের ভুলে নবজাতকের মৃত্যু। গতো দুই মাসে শামীমা ক্লিনিক ও আলফালাহা হসপিটালে প্রসূতি মা ও গর্ভের শিশুর মৃত্যু।এই সকল ঘটনা ধামাচাপা পড়ে যাচ্ছে টাকার বিনিময়ে।জানা যায় আলফালাহ হসপিটালে প্রসূতি মা ও তার গর্ভের সন্তান মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দিতে দেওয়া হয়েছে ভুক্তভোগী পরিবারকে তিন লক্ষ পঞ্চাশ হাজার টাকা আর সাংবাদিকদের দেওয়া হয়েছিলো পঞ্চাশ হাজার টাকা। শামীমা ক্লিনিকে দরিদ্র মায়ের মৃত্যুর ঘটনা ধামাচাপা দেওয়া হয়েছে মাত্র এক লক্ষ সত্তর হাজার টাকায়। ডাকবাংলা নার্সিং হোমে চিকিৎসকের চরম ভুলের মাশুল দিলো প্রসূতি মা সালমা বেগম। তার জীবনের মূল্য মাত্র চল্লিশ হাজার টাকা। সর্বশেষ গ্রীন লাইফ হসপিটালে চিকিৎসক রুমীর ভুলে সদ্য জন্মানো শিশুর করুন মৃত্যু হলো,তাও রফাদফা হলো মাত্র বিশ হাজার টাকায়। চিকিৎসা সেবা নিতে এসে অপচিকিৎসার বলি হচ্ছে একের পর এক প্রসূতি মা,কিন্তু ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন এই বিষয়ে সম্পূর্ণ নীরব ভুমিকা পালন করে আসছেন।
গত পাঁচটি মৃত্যুর বিষয়ে কথা হয় ঝিনাইদহের সিভিল সার্জন শুভ্রারানী দেবনাথের সাথে, তিনি সাংবাদিকদের জানান যদি কেউ অভিযোগ না করে তবে আমাদের পক্ষে অভিযান পরিচালিত করাটা অনেক কঠিন বিষয় হয়ে যায়,তিনি আরো জানান যে কোনো দিন ডাকবাংলা নার্সিং হোমে অভিযান পরিচালিত করে বড় ধরনের জরিমানা করা হবে এবং বন্ধ করে দেওয়া হবে।
তিনি স্বীকার করে বলেন ঝিনাইদহে নামে বেনামে আনাচে-কানাচে অনেক ভুয়া ক্লিনিক ও ডায়াগনস্টিক সেন্টার চলছে, যেকোনো সময় তাদের বিরুদ্ধে বড় ধরনের অভিযান পরিচালনা করা হবে।কৌশলগত কারনে কবে অভিযান পরিচালিত করা হবে সেটি বলছি না,কারন আগে থেকে বল্লে ঘটনাস্থলে গেলে তাদেরকে আর পাওয়া যায় না।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here