ইন্টারনেট ব্যবসায়ীদের অভিযোগ যশোরে পৌরসভার একটি দুবৃত্ত চক্র তার টিজে বক্স কেটেনেয়াসহ কর্মীদের হত্যার হুমকি দিচ্ছে

0
57

যশোর অফিস : যশোরে পৌরসভার ৬ নম্বর ওয়ার্ডে নিরাপদে ব্যবসা করতে পারছেন না ইন্টারনেট ব্যবসায়ীরা। স্থানীয় একটি দুবৃত্ত চক্র তাদের তার ও টিজে বক্স কেটে দিচ্ছে। কর্মচারীরা কাজ করতে গেলে তাদের হত্যার হুমকি দেওয়া হচ্ছে। রোববার প্রেসক্লাব যশোরে অনুষ্ঠিত সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন বিটিআরসির লাইসেন্সধারী যশোরের ২০টি প্রতিষ্ঠান।
সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন, টি-নেটওয়ার্কের প্রোপাইটর তৌহিদুল ইসলাম, যশোর আইটির সিইও নাফিজ ইকবাল, ফাতেমা টেক সল্যুশনের অ্যাডমিন অফিসার ইসমাইল হোসাইন, ঘুনি ব্রডব্যান্ডের ম্যানেজার মুরাদ হোসেন, বেনাপোল নেট-এর প্রোপাইটর হাসান, আস্থা নেটওয়ার্কের প্রোপাইটর অমিত অধিকারী, হিমেল নেটওয়ার্কের প্রোপাইটর মোহাম্মদ হিমেল, এসকে নেটওয়ার্কের প্রোপাইটর সাইদুর রহমান প্রমুখ।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য বক্তব্যে জান কম্পিউটারের পরিচালক সঞ্জয় সাহা বলেন, নিরবিচ্ছিন্ন দ্রুত গতির ব্রডব্যান্ড ইন্টারনেন্ট তৃণমূল পযান্ত পৌঁছে দিতে কাজ করছেন তারা। একই সাথে তারা লাখ লাখ টাকা সরকারকে ভ্যাট দিচ্ছেন। কিন্তু আইন মেনে ব্যবসা করলেও শহরের মাইকপট্টি, পোস্টঅফিস পাড়া, সার্কিট হাউজ পাড়া, ষষ্টিতলাসহ ৬ নম্বর ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় জোর করে তাদের সংযোগ বিচ্ছিন্ন করা হয়েছে। তাদের গ্রাহকদের ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ও বাড়িতে গিয়ে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে তাদের অবৈধ সংযোগ নিতে বাধ্য করা হয়েছে।
তিনি বলেন, রিয়াজ উদ্দিন আবির নামে একজন অবৈধ ব্যবসায়ী স্থানীয় কাউন্সিলর হাজী সুমনের সাথে থাকা ছেলে পেলেদের কাজে লাগিয়ে আধিপত্ত বিস্তারের চেষ্টা করছেন। একাধিকবার তারা ক্যাবল, টিজে বক্স কেটে নিয়ে গেছে। গ্রহকদের বলা হচ্ছে এলাকায় ব্যবসা করতে গেলে, বসবাস করতে হলে তাদের সংযোগ নিতে হবে। কাজ করতে গেলে কর্মচারীদের হত্যার হুমকি দিচ্ছেন আবিরের লোকজন। এজন্য তাদের কর্মচারীদের নিরাপত্তা ও টানানো ক্যাবল ও টিজে বক্সের নিরাপত্তা নিয়ে শঙ্কায় রয়েছেন।
তিনি আরও বলেন, বিষয়টি নিয়ে ইন্টারনেট ব্যবসায়ীরা বিটিআরসি ও ইন্টারনেট ব্যবসায়ীদের সংগঠন আইএসপিএবি’তে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। যার পরিপ্রেক্ষিতে বিটিআরসি থেকে রিয়াজ উদ্দিন আবিরের অবৈধ ইন্টারনেট ব্যবসা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন আবির লুকচুরির মাধ্যমে তাদের অবৈধ ব্যবসা চালানোর চেষ্ঠা করছেন। একই সাথে তাদের কর্মীদের কাজে বাধা ও হুমকি দিচ্ছেন। তিনি তাদের কর্মচারী ও ব্যবসায়ের নিরাপত্তার দাবি জানিয়েছেন প্রশাসনের কাছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here