লোহাগড়ার গন্ডব গ্রামে তিনজন নিহত হবার ঘটনায় ঝাঁড়– মিছিল সমাবেশ

0
374

লক্ষীপাশা(নড়াইল)প্রতিনিধি : নড়াইলের লোহাগড়ার গন্ডব গ্রামে ৩জন নিহত হবার ঘটনায় নিহতের স্বজনরা শহরে ঝাঁড়– মিছিলসহ বিক্ষোভ সমাবেশ করেছে। বৃহস্পতিবার(১১ জুন) দুপুর ২টার দিকে লক্ষীপাশা এলাকায় এ বিক্ষোভ মিছিল-সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। ওই তিন জন হত্যার জন্য সিআইডির(ক্রিমিনাল ইনভেষ্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট) ফরেনসিক শাখার ডিআইজি শেখ নাজমুল আলম সহ তার ভাতিজা ইয়াবা ব্যবসায়ী সুলতান মাহমুদ বিপ্লব সহ দোষীদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি করা হয়েছে। গ্রামবাসী ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, কাশিপুর ইউনিয়নের গন্ডব গ্রামে দীর্ঘদিন ধরে মিরাজ মোল্যা নেতৃত্বাধীন গ্রুপ এবং সুলতান মাহমুদ বিপ্লব নেতৃত্বাধীন গ্রুপ এর মধ্যে এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে বিরোধ চলছিল। এ বিরোধের জের ধরে উভয় গ্রুপ বুধবার দুপুর ৩টার দিকে ঢাল, সড়কি, রামদাসহ নানা দেশীয় অস্ত্র নিয়ে গন্ডব গ্রামের গো-হালটে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। সংঘর্ষে প্রতিপক্ষের ধারালো অস্ত্রের কোপে ওই গ্রামের মনতাজ মোল্যার ছেলে হাবিবুর রহমান ওরফে হাবিল মোল্যা(৫২), মৃত মাজেদ মোল্যার ছেলে মোক্তার মোল্যা(৫৮), সাইফার মোল্যার ছেলে রফিক মোল্যা(৫০) নিহত হন। নড়াইল সদর হাসপাতালে নিহতদের লাশের পোষ্টমর্টেম শেষে বৃহস্পতিবার দুপুরে লাশ লোহাগড়ায় আনা হয়। পরে গ্রামবাসীসহ নিহতের স্বজনরা ঝাঁড়– মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশ করে। এসময় বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান সিকদার আব্দুল হান্নান রুনু, কাশিপুর ইউপি চেয়ারম্যান মোঃ মতিয়ার রহমান। গ্রামবাসীরা অভিযোগ করেন, ইয়াবা ব্যবসায়ী ও জেলা পরিষদের সদস্য সুলতান মাহমুদ বিপ্লব ও তার চাচা ডিআইজি শেখ নাজমুল আলম এ তিন হত্যাকান্ড ঘটিয়েছে। লোহাগড়া থানার অফিসার ইনচার্জ সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, এ ঘটনায় ১২জনকে আটক করা হয়েছে। ৯টি ঢাল উদ্ধার করা হয়েছে। অভিযান অব্যাহত রয়েছে। গ্রামের বর্তমান পরিস্থিতি পুলিশের নিয়ন্ত্রণে। মামলার প্রস্তুতি চলছে। অভিযোগ বিষয়ে জানতে সিআইডির(ক্রিমিনাল ইনভেষ্টিগেশন ডিপার্টমেন্ট) ফরেনসিক শাখার ডিআইজি শেখ নাজমুল আলম এর নাম্বারে কয়েকবার ফোন দিলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here