ঝিকরগাছার পল্লীতে গৃহবধুর বিষ খেয়ে মৃত্যু : স্বামী কর্তৃক নির্যাতনের পরে হত্যা দাবী পরিবারের

0
301

মোহাম্মদ আলী জিন্নাহ, স্টাফ রিপোর্টার ॥ যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলা ৪নং গদখালী ইউনিয়নের কামারপাড়া গ্রামের গৃহবধু উর্মি (২২) বিষ খেয়ে শনিবার (২০মার্চ) রাতে মৃত্যুবরণ করেছে। তবে তার পরিবারের দাবী স্বামী কর্তৃক নির্যাতনের পরে হত্যা করা হয়েছে। সে শিমুলিয়া গ্রামের আজিজুর রহমান আরজু’র মেয়ে।
উর্মির বড় বোন চুমকি বলেন, আমার বোনের সাথে ৪বছর পূর্বে গদখালী ইউনিয়নের কামারপাড়া গ্রামের মুত আইনালের ছেলে রক্সির বিবাহ হয়। বিবাহের সময় সে বলেছিলো কোন প্রকার জিনিষপত্র লাগবে না। কিন্তু পরবর্তীতে বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে আমার বোনের উপর যৌতুকের জন্য নির্যাতন করতে থাকে। এছাড়াও আমার বোনায় প্রতিনিয়ত মাদকদ্রব্য সেবন করে আমার বোনকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ ও মারধর করে। শনিবার বিকালেও আমার বোনকে আমার বোনায় মেরে মুখের মধ্যে বিষ ঢেলে দিয়েছে। পরবর্তীতে তার লোক দেখানোর জন্য উপজেলা হাসপাতালে নিয়ে যায় ও সেখান থেকে যশোর সদর হাসপাতালে নিয়ে যাওয়ার সময় আমার বোন মারা যায়। তখন আমার বোনায় যশোর সদর হাসপাতালে আমার ছোট বোনের লাশ ফেলে পালিয়ে যায়।
নামপ্রকাশে অনিশ্চুক এক ব্যক্তি জানান, উর্মির স্বামী রক্সি একজন মাদক সেবনকারী। সে প্রতিনিয়ত বাড়ির মধ্যে বাহিরের লোক নিয়ে এসে একসাথে মাদক সেবন করে। এই বিষয়ে তার স্ত্রী নিষেধ করলে সে (রক্সি) প্রতিনিয়ত তার স্ত্রীকে মারধর করতো। শনিবার বিকালেও সে তার স্ত্রীকে মেরে বাড়ি থেকে চলে গেছে। তথ্য অনুসন্ধানে রক্সির বাড়ি গেলে তার বাড়িতে তালা ঝুলতে দেখা যায় এবং তার মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করলে সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। ৪নং গদখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান বলেন, এই ঘটনার বিষয়ে আমি কেবলমাত্র শুনলাম। ৩নং শিমুলিয়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফি উদ্দিন আহমেদ বলেন, আপনার মেয়ের মা-বোনের বক্তব্য নিলেই হবে। আমার কোন বক্তব্য লাগবে না। ঝিকরগাছা থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ আব্দুর রাজ্জাক বলেন, প্রতিনিয়ত তার স্বামী তাকে মারধর করে। যার জন্য সে সম্ভাবত বিষ খেয়ে আত্মহত্যা করেছে বলে মনে হচ্ছে। তবুও লাশের সুরতহাল রিপোর্ট আসলেই ভালো ভাবে বোঝা যাবে। উর্মির পিতা বাদি হয়ে জামাই রক্সি ও বিইয়ান রিজিয়াকে আসামী করে থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলা নং ১৬, তারিখ- ২১/০৬/২০২০ইং।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here