যবিপ্রবি ছাত্রলীগ নেতা কর্তৃক সাংবাদিক হেনস্তা

0
43

যশোর অফিস : যশোর বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (যবিপ্রবি) শহীদ মসিয়ূর রহমান (শ.ম.র) হলে ছাত্রলীগ নেতা কতৃক সাংবাদিক হেনস্তার ঘটনা ঘটেছে। গতকাল ২২ মে ২০২৩ দুপুর দুইটার দিকে যবিপ্রবির শারীরিক শিক্ষা ও ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগের (পিইএসএস) বিভাগ ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ আল মাহমুদ ও ছাত্রলীগকর্মী বেলাল হোসেন সাংবাদিক সমিতির সহ-সভাপতি ও ডেইলি বাংলাদেশ পোস্টের যবিপ্রবি প্রতিনিধি মো. জহুরুল ইসলামকে মারধর করেন। তারা দুজনেই যবিপ্রবি শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. সোহেল রানার অনুসারী এ ঘটনায় বিচার চেয়ে হল প্রভোস্ট বরাবর লিখিত অভিযোগ জমা দিয়েছেন ঐ সাংবাদিক।
জানা যায়, একাডেমিক ভবন থেকে হলে যাওয়ার সময় হলের প্রধান ফটকে তাকে অবরুদ্ধ করা হয়। ঘটনার এক পর্যায়ে জহুরুলকে পাশের গেস্টরুমে ডেকে নিয়ে  গালাগালি সহ শারীরিকভাবে নির্যাতন করেন (পিইএসএস) বিভাগ শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ আল মাহমুদ ও ছাত্রলীগ কর্মী বেলাল হোসেন। এর আগে একাধিকবার বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা পরিপন্থী কাজের জন্য বিভিন্ন মেয়াদে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বহিষ্কার হন আসিফ মাহমুদ। পাশাপাশি বেলাল হোসেনর নামেও বিশ্ববিদ্যালয়ের শৃঙ্খলা পরিপন্থী কর্মকান্ডের অভিযোগ রয়েছে।
এবিষয়ে আইপিই বিভাগের স্নাতকোত্তরের শিক্ষার্থী ও ডেইলি বাংলাদেশ পোস্ট এর বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিবেদক মো. জহুরুল ইসলাম বলেন, ‘আমার ডিপার্টমেন্টে কিছু কাজ ছিলো সেগুলো শেষে আনুমানিক দুপুর ১টা৪৫ মিনিটের সময় শহীদ মসিয়ূর রহমান হল’ এ আমার রুমে যাওয়ার জন্য হলে ঢুকতে যাই কিন্তু হলের কলাপসিবল গেট আটকানো দেখে গেট খুলে হলে ঢুকতে গেলে পিছন থেকে পিএসএস বিভাগ ছাত্রলীগের সভাপতি আসিফ আল মাহমুদ  ও বেলাল আমাকে ডাক দেয়। তাদের কাছে গেলে বলে ‘সিনিয়র ভাই ডাকলাম, শুরুতে ডাক শুনিস নাই কেনো? আমি শুনতে পাই নাই বললে আসিফ  ও বেলাল হলের গেস্ট রুমে নিয়ে যেয়ে আমাকে শারিরীকভাবে হেনস্তা করে।’
এ বিষয়ে শহীদ মসিয়ূর রহমান হলের প্রভোস্ট ড. আশরাফুজ্জামান জাহিদ বলেন, ভুক্তভোগী শিক্ষার্থীর কাছ থেকে  লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। প্রভোস্ট বডির সাথে মিটিং করে অফিসিয়ালি ব্যবস্থা নিবো।’
সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে চাইলে তিনি বলেন, যেহেতু এটি অফিসিয়াল ব্যাপার। তাই প্রভোস্ট বডির সাথে আলোচনা করে ফুটেজ দেখানো হবে।
এবিষয়ে যবিপ্রবি ছাত্রলীগের সভাপতি মো: সোহেল রানা বলেন, এবিষয়ে আমাদের কাছে কেউ লিখিত অভিযোগ দেয়নি। লিখিত অভিযোগ দিলে, আমরা ব্যবস্থা নিবো।
উক্ত ঘটনা সম্পর্কে যবিপ্রবি উপাচার্য অধ্যাপক ড. আনোয়ার হোসেন বলেন, এই বিষয়ে আমার কাছে লিখিত কোন অভিযোগ আসেনি। অভিযোগ আসলে আমরা বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনানুসারে ব্যবস্থা নিব।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here