যশোরে বিএনপির রাজপথ না ছাড়ার প্রত্যয় ঘোষনা

0
106

যশোর : যশোরে বিএনপির জন সমাবেশে কেন্দ্রীয় যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট রুহুল কবীর রিজভী বলেছেন, এখন একটিই দাবি শেখ হাসিনার পদত্যাগ। বাংলাদেশের মৃত গনতন্ত্র বাঁচাতে হলে এর বিকল্প নেই।
যশোর শহরের চারখাম্বা মোড়ে জনসভায় তিনি প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন। প্রধান অতিথি আরো বলেন, ভোট চোরদের ক্ষমতায় থাকার কোন যোগ্যতা নেই। প্রশাসন দিয়ে ক্ষমতায় থাকার দিন শেষ।
জনসমাবেশে সভাপতিত্ব করেন, জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যাপিকা নার্গিস ইসলাম।
জনসমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন, খুলনা বিভাগীয় বিএনপির ভারপ্রাপ্ত সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত।
বিশেষ অতিথি হিসাবে খুলনা বিভাগীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অনিন্দ্য ইসলাম অমিত বলেন, শহীদ জিয়ার সৈনিকরা রাজপথে ছাড়বে না। তিনি রাজপথ না ছেড়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
এছাড়া বিশেষ অতিথি হিসাবে আরো বক্তব্য রাখেন, যশোর জেলা বিএনপির সদস্য সচিব এ্যাডভোকেট সৈয়দ সাবেরুল হক সাবু, কেন্দ্রীয় বিএনপির সদস্য সাবেরা নাজমুল মুন্নী, কেন্দ্রীয় স্বেচ্ছাসেবক দলের সাবেক সহ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান, যশোর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট ইসাহক, মাগুরা জেলা বিএনপির সিনিয়র যুগ্ম আহ্বায়ক আহসান হাবিব কিশোর, যশোর জেলা বিএনপির সদস্য মোহাম্মদ মুছা, যুগ্ম আহ্বায়ক দেলোয়ার হোসেন খোকন, সদস্য আব্দুস সালাম আজাদ, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি কাজী আজম প্রমুখ, নগর বিএনপির সাবেক সভাপতি মারুফুল ইসলাম, দেলোয়ার হোসেন খোকনসহ জেলা বিএনপি, যুবদল ছাত্রদল ও মহিলা দলের নেতৃবৃন্দ।
যশোরের ভোলা ট্যাংক রোডে বিএনপি নেতাকর্মীদের ঢল
যশোরে বিএনপির জনসমাবেশে অবিলম্বে বর্তমান সরকারের পদত্যাগসহ ১০ দফা দাবি, দলীয় নেতাকর্মীদের গ্রেপ্তার, হয়রানি ও নিত্যপণ্যের মূল্যবৃদ্ধির প্রতিবাদ জানিয়েছেন নেতৃবৃন্দ। শহরের ভোলা ট্যাংক রোডে জনসমাবেশ শনিবার দুপুর তিনটার দিকে শুরু হয়।
পূর্বঘোষিত কর্মসূচিতে অংশ নিতে মেঘ-বৃষ্টি উপেক্ষা করে জড়ো হন দলটির বিভিন্ন অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মীরা। সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দলের যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির। সভাপতিত্ব করেন জেলা বিএনপির আহবায়ক অধ্যাপিকা নার্গিস বেগম।
যশোরে বিএনপির সমাবেশ বিকাল ৩ টায় শুরু হওয়ার কথা থাকলেও সকাল ১০টা থেকেই জেলার বিভিন্ন উপজেলা ও ইউনিয়ন থেকে মিছিল সহকারে সমাবেশে যোগ দেয়। এসব নেতাকর্মীদের হাতে পতাকার সঙ্গে লাঠি-সোঁটা বহন করতে দেখা গেছে। এদিকে বিপুল সংখ্যক পুলিশ সদস্য ও সাদা পোশাকে নিরাপত্তাকর্মীরা সমাবেশস্থল ও এর আশপাশে বিভিন্ন এলাকায় সতর্ক অবস্থায় ছিল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here