যশোরে সাংবাদিক ফখরে আলম আর নেই প্রেসক্লাব যশোর এর কর্মসূচী ঘোষণা

0
456

যশোর অফিসঃ যশোরে প্রথিতযশা সাংবাদিক ফখরে আলম মারা গেছেন। ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন।তিনি দীর্ঘদিন ধরে ক্যানসারে ভুগছিলেন। আজ সকালে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে বাসা থেকে তাকে হাসপাতালে নেওয়া হয়। সেখানে কর্তব্যরত ডাক্তার নয়টা ৪০ মিনিটে জানান, হাসপাতালে আনার আগেই মারা গেছেন। ফখরে আলমের মরদেহ এখন তার যশোর শহরের রেলগেট তেঁতুলতলার, ডালমিল বাসভবনে রয়েছে। খবর পেয়ে আত্মীয়-স্বজন, প্রতিবেশী, সহকর্মীরা যাচ্ছেন সেখানে।
ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার পর একপর্যায়ে ফখরে আলম চোখের দৃষ্টিশক্তিও হারান। তিনি বাংলাদেশ ছাড়াও ভারতের বিভিন্ন স্থানে চিকিৎসা নেন।মৃত্যুর আগ পর্যন্ত ফখরে আলম দৈনিক কালের কণ্ঠের বিশেষ প্রতিনিধি হিসেবে দায়িত্বরত ছিলেন। এর আগে তিনি ১৯৮৫ সালে সাপ্তাহিক রোববারের মাধ্যমে সাংবাদিকতা শুরু করেন। পরে তিনি আজকের কাগজ, মানবজমিন জনকণ্ঠ, আমাদের সময়, যায়যায়দিন, ভোরের কাগজ, বাংলাবাজার পত্রিকায় কাজ করেছেন।
সাংবাদিকতা জীবনে তিনি মোনাজাত উদ্দিন স্মৃতি পুরস্কার, মুক্তিযুদ্ধ জাদুঘরের বজলুর রহমান স্মৃতি পদক, এফপিএবি পুরস্কার, মধুসূদন একাডেমি পুরস্কার, এফইজেবি পুরস্কার, টিআইবি অনুসন্ধানী সাংবাদিকতা পুরস্কারসহ নানা পদক, পুরস্কার ও সম্মাননা পেয়েছেন।
কবি হিসেবেও তার ব্যাপক পরিচিতি ছিল। একসময় যশোর সাহিত্য পরিষদেও সক্রিয় ছিলেন তিনি।
কবিতা, সাংবাদিকতা, মুক্তিযুদ্ধ প্রভৃতি বিষয়ে ফখরে আলম ৩৪টি বই লিখেছেন। তার মধ্যে ‘রিপোর্টারের ডায়েরি’, ‘হাতের মুঠোয় সাংবাদিকতা’, ‘ডাকে প্রেম তুষার চুম্বন’, ‘যশোরের গণহত্যা’, ‘তুই কনেরে পাতাসী’, ‘খুলে ফেলি নক্ষত্রের ছিপি’, ‘এ আমায় কনে নিয়ে আলি’, ‘অন্ধকার চুর্ণ করি’ প্রভৃতি উল্লেখযোগ্য।
১৯৬১ সালের ২১ জুন জন্ম নেওয়া ফখরে আলম বৃদ্ধা মা, স্ত্রী, দুই ছেলে-মেয়েসহ অনেক শুভাকাঙ্ক্ষী রেখে গেছেন। যশোর শহরতলীর চাঁচড়া এলাকার বাসিন্দা তার বাবা মরহুম শামসুল হুদা ছিলেন পুলিশ কর্মকর্তা।
পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে, আজ বাদআছর যশোর জিলা স্কুল মাঠে মরহুমের জানাজা হবে। পরে তাকে চাঁচড়ার পারিবারিক গোরস্থানে দাফন করা হবে। এর আগে বিকেল সাড়ে চারটায় প্রেসক্লাব যশোরে আনা হবে ফখরে আলমের মরদেহ। ক্লাবের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন জানিয়েছেন, সেখানে সাংবাদিকদের বিভিন্ন সংগঠন ছাড়াও জনসাধারণের শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কিছু সময় রাখা হবে মরদেহ। আগ্রহী ব্যক্তি ও সংগঠনকে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে স্বাস্থ্যবিধি মেনে মরহুমের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের অনুরোধ করেছেন প্রেসক্লাব সেক্রেটারি আহসান কবীর। ফখরে আলমের মুত্যুতে গভীর শোক , ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সম্পাদক আহসান কবীর, সাংবাদিক ইউনিয়ন যশোরের সভাপতি শহিদ জয় সাধারণ সম্পাদক আকরামুজ্জামান, যশোর সাংবাদিক ইউনিয়নের সভাপতি সাজেদ রহমান, সাধারণ সম্পাদক হাবিবুর রহমান মিলন , ফটো জার্নালিস্ট এ্যাসোসিয়েশন যশোর জেলা শাখার সভাপতি মনিরুজ্জামান মুনির, ও সাধারণ সম্পাদক গালিব হাসান পিল্টু,।
এদিকে তার মৃত্যুতে প্রেসক্লাব যশোরে আজ বৃ্হসপতিবার কালো পতাকা উত্তোলন ও কালোব্যাজ ধারনের কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। আগামী রোববার বেলা ১২টায় তার বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করে দোয়া মাহফিলের আয়োজনের সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here